তারিখ : ২৬ মে ২০২০, মঙ্গলবার

সংবাদ শিরোনাম

বিস্তারিত বিষয়

করোনা ভাইরাস নিয়ে দুটি কথা-ইসরাফিল আলম এমপি

করোনা ভাইরাস নিয়ে দুটি কথা-ইসরাফিল আলম এমপি
[ভালুকা ডট কম : ২৪ মার্চ]
নওগাঁ-৬ (আত্রাই-রাণীনগর) আসনের সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারন সম্পাদক মো: ইসরাফিল আলম করোনা ভাইরাস সম্পর্কে কিছু করনীয় বিষয়গুলো তুলে ধরেছেন।তারই কিছু অংশ নিম্মে উল্লেখ্য করা হলো: বাংলাদেশের প্রথম এবং একমাত্র স্বাস্থ্য সেবা বিষয়ক বিশ্ববিদ্যালয় হলো বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়। তারা তাদের শীর্ষস্থানীয় অবস্থানে অধিষ্ঠিত থেকে দেশের স্বাস্থ্যসেবার ক্ষেত্রে অনন্য ভূমিকা পালন করবেন এটাই ছিল আমাদের সকলের প্রত্যয় ও প্রত্যাশা।

কিন্তু হতাশ হয়ে গেলাম বাংলাদেশের নভেল করোনা ভাইরাসের সম্ভাব্য প্রভাব ও সংক্রমনের সর্বোচ্চ উদ্বেগজনক আশংঙ্কার মধ্যেও এই প্রতিষ্ঠানের সম্মানিত ভিসি, দেশের বিশিষ্ট চিকিৎসক বড়–য়া বাবু এখন পর্যন্ত মানুষজনকে স্বাস্থ্য ঝুঁকিমুক্ত করার জন্য বা তার প্রতিকারের জন্য করণীয় সম্পর্কে তেমন কোন দিক নির্দেশনা দিলেন না। যদিও তার অধীনস্থ অধ্যাপক এবং চিকিৎসকবৃন্দ অনেক কথা বলেছেন এবং বলছেন। অবশ্য করোনাভাইরাস একটি সর্বোচ্চ জনস্বাস্থ্য ঝুঁকিপূর্ণ সঙ্কটের অন্তর্ভুক্ত বিষয় তা নিয়ে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের নেতৃত্ব দানকারী ভূমিকা পালন করা উচিত।

কিন্তু এ বিষয়ে সরকার ও রাষ্ট্রের পক্ষে কে সেন্ট্রাল বা ফোকাল পয়েন্ট তথা কমান্ডিং আমরেলা নিয়ন্ত্রণ করছেন বা পরিচালনা করছেন তা বোঝা যাচ্ছে না। এখন সবার মনে হয় করোনা বিশেষজ্ঞ হিসেবে সোশ্যাল মিডিয়া, প্রিন্ট মিডিয়া এবং ইলেট্রনিক মিডিয়াতে নিজ নিজ মতামত উপস্থাপন করছেন-যার মধ্যে ভালো-মন্দ উভয় বিষয়ই আছে। কিন্তু মূল কথা হলো এই সর্বোচ্চ ও জটিল স্বাস্থ্য বিপর্যয়ের মধ্যে থেকে ১৭কোটি জনগণের একটি দেশকে সহায়তা দিতে- স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়কেই অগ্রণী ভূমিকা পালন করতে হবে এবং দেশের জীবনু বিশেষজ্ঞ ও মেডিসিন বিশেষজ্ঞসহ স্বাস্থ্য সেবার কাজে পরীক্ষিত ভাবে পারদর্শী এবং দেশবাসীর কাছে আস্থা ও বিশ্বাস অর্জনকারীদের সমন্বয়ে একটি “প্রিভেন্টিভ বা কনসালটেটিভ টিম” তৈরি করা উচিত।

* যারা সরকারের পক্ষ থেকে সরকারের গৃহীত পদক্ষেপ, সরকারের সম্পর্কিত সর্বশেষ অবস্থান, সরকারের চিন্তা ভাবনা এবং প্রস্তুতি সম্পর্কে দেশবাসীকে টাইম টু টাইম অবহিত করবেন।
* যাদের পরামর্শ ও দিকনির্দেশনা সমস্ত জাতি একইভাবে করোনার বিরুদ্ধে কাজ করবে এবং করোনা ভাইরাস থেকে সুরক্ষার জন্য চেষ্টা করবে।
*বাংলাদেশে অনেক ফার্মাসিটিক্যাল কোম্পানি আছেন যারা ঔষধ প্রস্তুত করে থাকেন। করোনা নাশক ঔষধ, হাত পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখার প্রতিরোধমূলক ঔষধসহ পার্সোনাল প্রটেকশন ইকুইপমেন্ট প্রস্তুত করবেন ।
*মাক্স প্রস্তুতের জন্য গার্মেন্টস প্রতিষ্ঠানগুলোকে দ্রুত নির্দেশ দেওয়া উচিত যারা প্রতিদিন অন্তত ৫০ লক্ষ মাক্স তৈরি করে সারা দেশে ছড়িয়ে দেওয়ার ব্যবস্থা করবেন।
*হ্যান্ড গ্লভস তৈরির জন্য সংশ্লিষ্ট কারখানাগুলোকে হ্যান্ড। গ্লোভস তৈরীর নির্দেশ দিতে হবে।
*প্লাস্টিক ফ্যাক্টরিগুলোকে বলতে হবে হ্যাকসালের জন্য বিভিন্ন মাপের বোতল তৈরি করে ফার্মাসিটিক্যাল কোম্পানিগুলোতে সরবরাহ করার জন্য যাতে ফার্মাসিটিক্যাল কোম্পানিগুলো হাত পরিষ্কারসহ অন্যান্য লিকুইড তৈরি পূর্বক এসব প্লাস্টিক বোতলে পূরণ করে, দ্রুত সারাদেশে ছড়িয়ে দিতে পারে, নিজ নিজ মারকেটিং চ্যানেলের মাধ্যমে।
*মনে রাখতে হবে -কোন সরকারের একক প্রচেষ্টায় এ জাতীয় দুর্যোগ বা মহামারী মোকাবেলা সম্ভব নয়। এজন্য সংশ্লিষ্ট সকলের সক্রিয় উদ্যোগ এবং দায়িত্বশীল, কার্যকর ও সমন্বীত ভূমিকা থাকা উচিত।#





সতর্কীকরণ

সতর্কীকরণ : কলাম বিভাগটি ব্যাক্তির স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য,আমরা বিশ্বাস করি ব্যাক্তির কথা বলার পূর্ণ স্বাধীনতায় তাই কলাম বিভাগের লিখা সমূহ এবং যে কোন প্রকারের মন্তব্যর জন্য ভালুকা ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় । প্রত্যেক ব্যাক্তি তার নিজ দ্বায়ীত্বে তার মন্তব্য বা লিখা প্রকাশের জন্য কর্তৃপক্ষ কে দিচ্ছেন ।

কমেন্ট

কলাম বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন জরিপ

  • ভালুকা ডট কম এর নতুন কাজ আপনার কাছে ভাল লাগছে ?
    ভোট দিয়েছেন ১২৫০ জন
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই