তারিখ : ১৯ নভেম্বর ২০১৯, মঙ্গলবার

সংবাদ শিরোনাম

বিস্তারিত বিষয়

নান্দাইলে বয়স জালিয়াতি করে বিদ্যালয়ে চাকুরী

নান্দাইলে বয়স জালিয়াতি করে কাশিনগর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে চাকুরী নিলেন রাজ্জাক
[ভালুকা ডট কম : ১৮ জুলাই]
নাছোড়বান্দা মো. আব্দুর রাজ্জাক। সমস্যা দাঁড়াল বয়স নিয়ে। জাতীয় পরিচয়পত্রে (এনআইডি) তাঁর বয়স ৩৭ বছর। অবশ্য রাজ্জাকের কাছে অসম্ভব বলে কিছু নেই! সংশোধনের নামে এনআইডিতে যোগ করলেন ‘মানিক’ নাম। বদলাল গ্রামের নামও। বয়স হলো ৩১ বছর। আর পেশা হিসেবে যোগ হলো দপ্তরি পরিচয়।সম্প্রতি ময়মনসিংহের নান্দাইল উপজেলায় এ ঘটনা ঘটেছে।

এ জালিয়াতি নিয়ে রাজ্জাকের বিরুদ্ধে জেলা ও উপজেলা শিক্ষা অফিসে অভিযোগ দিয়েছেন অন্য চাকরিপ্রার্থী খাইরুল ইসলাম। রাজ্জাক এখন উপজেলার ৫২ নম্বর কাশীনগর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে কর্মরত। গত ২৭ জুন তিনি এ পদে যোগ দেন।

স্থানীয় লোকজন বলছে, রাজ্জাকের প্রকৃত বয়স হবে অন্তত ৪৫ বছর। তাঁর বাড়ি নান্দাইলের রাজগাতি ইউনিয়নের খালপাড় গ্রামে। নতুন এনআইডিতে গ্রামের নাম হয়েছে রাজগাতি। তাঁর আগের এনআইডি নম্বর হচ্ছে ১৯৭৮৬১১৭২৭৯২৯৭৯০৩। সেখানে তাঁর নাম মো. আব্দুর রাজ্জাক। বাবার নাম সাহাব উদ্দিন, মাতার নাম ছালমা খাতুন ও স্ত্রীর নাম মোছা. মুর্শিদা খাতুন। দ্বিতীয় এনআইডি নম্বর হচ্ছে ১৯৮৪৬১১৭২৭৯০০০০৩৪। এটিতে ব্যক্তির নাম পরিবর্তন করে মো. আব্দুর রাজ্জাক মানিক লেখা রয়েছে। বাবা ও মায়ের নাম ঠিকই আছে। তবে স্ত্রীর নাম পরিবর্তন করে মোছা. মুর্শিদা আক্তার লেখা হয়েছে।

নির্বাচন কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, এনআইডি নম্বরের প্রথম চারটি সংখ্যা হচ্ছে ব্যক্তির জন্ম সাল। সেই হিসাবে প্রথম পরিচয়পত্রে রাজ্জাকের জন্ম সাল হচ্ছে ১৯৭৮। আর নতুন পরিচয়পত্রে জন্ম সাল হয়েছে ১৯৮৪। গত রবিবার উপজেলা নির্বাচন কার্যালয়ে যাচাই করা হলে দুটি এনআইডি সচল থাকার তথ্য মিলেছে। দুটি পরিচয়পত্রে নামের কিছুটা ভিন্নতা থাকলেও ছবি একই ব্যক্তির।

এ বিষয়ে নির্বাচন কর্মকর্তা মো. মাহবুবুল হক বলেন,এক ব্যক্তির আঙুলের ছাপে দুটি জাতীয় পরিচয়পত্র থাকার কথা নয়। আঙুলের ছাপ ম্যাচিং করার সময় বিষয়টি ধরা পড়ার কথা। এ রকম জালিয়াতি ধরা পড়লে তাঁর বিরুদ্ধে মামলা করা হবে।

অবশ্য রাজ্জাকের দাবি, তাঁর প্রকৃত নাম আব্দুর রাজ্জাক মানিক। দুটি জাতীয় পরিচয়পত্র থাকার বিষয়ে তিনি বলেন,এলাকায় আমি মানিক নামেই বেশি পরিচিত। তাই আগের নামটি বদলিয়ে এখন আব্দুর রাজ্জাক মানিক করেছি। তা ছাড়া একটা জরুরি কাজের জন্য সংশোধন করেছি।নান্দাইল উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মোহাম্মদ আলী সিদ্দিক বলেন, তদন্ত সাপেক্ষে এ বিষয়ে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।#





সতর্কীকরণ

সতর্কীকরণ : কলাম বিভাগটি ব্যাক্তির স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য,আমরা বিশ্বাস করি ব্যাক্তির কথা বলার পূর্ণ স্বাধীনতায় তাই কলাম বিভাগের লিখা সমূহ এবং যে কোন প্রকারের মন্তব্যর জন্য ভালুকা ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় । প্রত্যেক ব্যাক্তি তার নিজ দ্বায়ীত্বে তার মন্তব্য বা লিখা প্রকাশের জন্য কর্তৃপক্ষ কে দিচ্ছেন ।

কমেন্ট

অনুসন্ধানী প্রতিবেদন বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন জরিপ

  • ভালুকা ডট কম এর নতুন কাজ আপনার কাছে ভাল লাগছে ?
    ভোট দিয়েছেন ১২২২ জন
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই