তারিখ : ২১ জুলাই ২০১৯, রবিবার

সংবাদ শিরোনাম

বিস্তারিত বিষয়

সোনাগাজীর সাবেক ওসি মোয়াজ্জেম ঢাকায় গ্রেফতার

সোনাগাজীর সাবেক ওসি মোয়াজ্জেম ঢাকায় গ্রেফতার
[ভালুকা ডট কম : ১৬ জুন]
ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলায় গ্রেফতারি পরোয়ানা জারির ২০ দিন পর ফেনীর সোনাগাজী থানার সাবেক ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোয়াজ্জেম হোসেনকে ঢাকায় গ্রেফতার করেছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি)। আজ (রোববার) বিকেল ৩টার দিকে রাজধানীর শাহবাগ এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। পুলিশ সদর দপ্তরের সহকারী মহাপরিদর্শক (এআইজি) সোহেল রানা ওসি মোয়াজ্জেমকে গ্রেপ্তারের সত্যতা নিশ্চিত করেন।

গ্রেপ্তারি পরোয়ানা নিয়ে লুকোচুরির পর ফেনীর সোনাগাজী থানার সাবেক ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোয়াজ্জেম হোসেন পালিয়ে গেছেন বলেন সরকার ও পুলিশের পক্ষ থেকে বলা হচ্ছিল। তবে ওসি মোয়াজ্জেম দ্রুতই গ্রেপ্তার হবেন বলে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ও পুলিশ কর্মকর্তারা বলে আসছিলেন।

মাদ্রাসাছাত্রী নুসরাত জাহান রাফিকে গত ৬ এপ্রিল পুড়িয়ে হত্যার চেষ্টা করেন তাঁর মাদ্রাসার শিক্ষার্থীরা। এর ১০ দিন আগে নুসরাত মাদ্রাসার অধ্যক্ষ সিরাজ উদদৌলার বিরুদ্ধে শ্লীলতাহানির অভিযোগ জানাতে সোনাগাজী থানায় যান। থানার তৎকালীন ওসি মোয়াজ্জেম হোসেন সে সময় নুসরাতকে আপত্তিকর প্রশ্ন করে বিব্রত করেন এবং তা ভিডিও করে ছড়িয়ে দেন।

থানায় নুসরাতকে হয়রানির এ ঘটনায় ঢাকার সাইবার ক্রাইম ট্রাইব্যুনালে বাদি হয়ে মামলা করেন সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ব্যারিস্টার সৈয়দ সায়েদুল হক সুমন।আদালত মামলাটির তদন্ত ভার দেন পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনকে (পিবিআই)। পরে গত মোয়াজ্জেমের বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগের সত্যতা তুলে ধরে ২৭ মে পিবিআইয়ের সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার রীমা সুলতানা মামলার তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করলে আদালত মোয়াজ্জেমের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেন। পরোয়ানা জারির দুইদিন পর মোয়াজ্জেম হোসেন হাইকোর্টে জামিন আবেদন করেন। ।

গ্রেফতার সাবেক ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোয়াজ্জেম হোসেনকে ফেনীর সোনাগাজী থানা পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হবে বলে জানিয়েছেন পুলিশের রমনা বিভাগের উপ-কমিশনার মারুফ হোসেন সরদার। বিকেলে রাজধানীর মগবাজারে রমনা বিভাগের উপ-পুলিশ কমিশনারের কার্যালয়ে এক ব্রিফিংয়ে এ তথ্য জানান তিনি।

মারুফ সরদার জানান, শাহবাগ থানার কদম ফোয়ারার সামনে থেকে ওসি মোয়াজ্জেমকে গ্রেফতার করা হয়েছে। গোপন তথ্যের ভিত্তিতে তাকে গ্রেফতার করা হয়। এখন তিনি শাহবাগ থানা পুলিশের হেফাজতে আছেন। তাকে সোনাগাজী থানা পুলিশের হাতে তুলে দেয়া হবে। তারাই মোয়াজ্জেমের বিরুদ্ধে পরবর্তী পদক্ষেপ নেবে। আগাম জামিন নিতে হাইকোর্টে গিয়েছিলেন মোয়াজ্জেম হোসেন। কিন্তু শুনানি হওয়ার আগেই তাকে গ্রেফতার করে পুলিশ। ফলে জামিন পেতে তাকে বিচারিক আদালতে আবেদন করতে হবে। আজ বেলা ১টা মোয়াজ্জেম হোসেনের আইনজীবী সালমা সুলতানা জামিন আবেদনটি শুনানির জন্য উপস্থাপন করেন। বিচারপতি মইনুল ইসলাম চৌধুরী ও বিচারপতি খিজির হায়াত হাইকোর্ট, তা সোমবারের কার্যতালিকায় রাখেন। বেলা সাড়ে ৩টার দিকে গ্রেফতার হন মোয়াজ্জেম হোসেন। ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে করা মামলায় তাকে গ্রেফতার করে শাহবাগ থানা পুলিশ। গ্রেফতারি পরোয়ানা জারির ২০ দিন পর, মোয়াজ্জেমকে গ্রেফতার করা হলো। গত ২৭ মে তার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করে আদালত। #





সতর্কীকরণ

সতর্কীকরণ : কলাম বিভাগটি ব্যাক্তির স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য,আমরা বিশ্বাস করি ব্যাক্তির কথা বলার পূর্ণ স্বাধীনতায় তাই কলাম বিভাগের লিখা সমূহ এবং যে কোন প্রকারের মন্তব্যর জন্য ভালুকা ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় । প্রত্যেক ব্যাক্তি তার নিজ দ্বায়ীত্বে তার মন্তব্য বা লিখা প্রকাশের জন্য কর্তৃপক্ষ কে দিচ্ছেন ।

কমেন্ট

অপরাধ জগত বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন জরিপ

  • ভালুকা ডট কম এর নতুন কাজ আপনার কাছে ভাল লাগছে ?
    ভোট দিয়েছেন ৫৮৩ জন
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই