তারিখ : ২৫ জুন ২০১৯, মঙ্গলবার

সংবাদ শিরোনাম

বিস্তারিত বিষয়

ত্রিশালে স্থগিত হওয়া উপজেলা পরিষদ নির্বাচন ৫মে

ত্রিশালে স্থগিত হওয়া উপজেলা পরিষদ নির্বাচন ৫মে  
[ভালুকা ডট কম : ২৩ এপ্রিল]
ময়মনসিংহের ত্রিশাল উপজেলা পরিষদের স্থগিত হওয়া নির্বাচন আগামী ৫ মে  রবিবার অনুষ্ঠিত হবে। বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশনের নির্বাচন পরিচালনা-২-এর স্বাক্ষরিত চিঠিতে এ তথ্য নিশ্চিত করে ২১ এপ্রিল নির্দেশনা দেন উপসচিব মোঃ আতিয়ার রহমান ।

স্থগিতকৃত ত্রিশাল উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান পদে নির্বাচন সংক্রান্ত হাইকোর্ট বিভাগের আদেশ অনুযায়ী প্রতিদ্বন্ধী প্রার্থী তালিকা সংশোধন, ব্যালট পেপার মুদ্রণ ও অন্যান্য কার্যক্রম গ্রহণপূর্বক ৫মে/১৯ তারিখে ভোট গ্রহণের দিন ধার্য করা ও চেয়ারম্যান, ভাইস চেয়ারম্যান এবং মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদের নির্বাচন অনুষ্ঠানের সিদ্ধান্ত নেয় নির্বাচন কমিশন।

উল্লেখ্য ত্রিশাল উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী আবদুল মতিন সরকারের ছেলে শহীদুল ইসলাম দি ফারমার্স ব্যাংক লিমিটেড ময়মনসিংহ শাখা হতে নিজ ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের নামে ২০১৬ সালের ৭ আগস্ট দুই কোটি টাকা ঋণ নেন। যার জামিনদার হন পিতা আবদুল মতিন। গত বছরের ৭ অগাস্টের মধ্যে ঋণ পরিশোধের শর্ত থাকলেও করা হয়নি ও যা সুদ-আসলে ২ কোটি ২৯ লাখ ৮১ হাজার ২৯৭ টাকা হয়েছে। নির্ধারিত সময়ে পরিশোধিত না হওয়ায় ঋণ খেলাপির অভিযোগে ২ শে মার্চ উচ্চ আদালতে রিট করেন আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী ইকবাল হোসেন। রিট আবেদনের প্রাথমিক শুনানির পর ২৭শে মার্চ বুধবার পুত্রের ঋণ খেলাপির দায়ে পিতা আবদুল মতিন সরকারের প্রার্থিতা বাতিল ও চেয়ারম্যান পদে ৬ মাসের জন্য নির্বাচন স্থগিতের আদেশ দেন বিচারপতি মো. নজরুল ইসলাম তালুকদার ও বিচারপতি কে এম হাফিজুল আলমের সমন্বয়ে হাইকোর্টের অবকাশকালীন বেঞ্চ।

আদালতের রায়ের স্থগিতাদেশ চেয়ে ২৮শে মার্চ মতিন সরকার চেম্বার জজ আদালতে বিচারপতি ইমান আলীর বেঞ্চে আবেদন করেন। ৪ঠা এপ্রিল পূর্নাঙ্গ বেঞ্চে শুনানির দিন ধার্য করলে বৃহস্পতিবার দুপুর সাড়ে ১২টায় আপিল বিভাগের পূর্নাঙ্গ বেঞ্চে শুনানি হয়। এতে তাঁর আইনজীবি হিসেবে ব্যারিস্টার ফজলে নুর তাপস, এডভোকেট ইউসুফ হোসেন হুমায়ুন, এডভোকেট শেখ মোহাম্মদ মোর্শেদ, এডভোকেট কাউসার ও  ইকবাল হোসেনের পক্ষে সুপ্রীম কোর্ট বার এসোসিয়েমনের সভাপতি আমির উদ্দিন মানিক শুনানিতে অংশগ্রহন করেন। শুনানিতে মতিন সরকারের প্রার্থীতা বৈধ ঘোষণা করে নির্বাচনে অংশগ্রহনে কোন বাধা নেই মর্মে রায় প্রদান করে রিট আবেদনটি খারিজ করে দেয়।

স্বতন্ত্র প্রার্থীর আপিলের প্রেক্ষিতে ৩১শে মার্চ ত্রিশাল উপজেলা পরিষদ নির্বাচন হওয়ার কথা থাকলেও নির্বাচন পরবর্তি নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত নির্বাচন স্থগিত ঘোষণা করে কমিশন। হাইকোর্টের ওই আদেশের প্রেক্ষিতে পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত চেয়ারম্যানসহ সকল পদের নির্বাচন স্থগিত রাখার সিদ্ধান্ত গ্রহন করে ময়মনসিংহ জেলা ও উপজেলা নির্বাচন অফিসে চিঠি প্রেরণ করে নির্বাচন কমিশন। এরই প্রেক্ষিতে ত্রিশাল উপজেলা পরিষদ নির্বাচন স্থগিত ছিল। ২১ এপ্রিল কমিশনের আদেশের প্রেক্ষিতে  ৫মে ২০১৯ এ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে মর্মে ঘোষণা করা করা হয়।উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ফারুক মিয়া জানান, নির্বাচন কমিশেনর নির্দেশনা আমরা পেয়েছি, রির্টানিং অফিসারের কার্যালয় থেকে সোমবার গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়েছে। #





সতর্কীকরণ

সতর্কীকরণ : কলাম বিভাগটি ব্যাক্তির স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য,আমরা বিশ্বাস করি ব্যাক্তির কথা বলার পূর্ণ স্বাধীনতায় তাই কলাম বিভাগের লিখা সমূহ এবং যে কোন প্রকারের মন্তব্যর জন্য ভালুকা ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় । প্রত্যেক ব্যাক্তি তার নিজ দ্বায়ীত্বে তার মন্তব্য বা লিখা প্রকাশের জন্য কর্তৃপক্ষ কে দিচ্ছেন ।

কমেন্ট

নির্বাচন বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন জরিপ

  • ভালুকা ডট কম এর নতুন কাজ আপনার কাছে ভাল লাগছে ?
    ভোট দিয়েছেন ৫৭৬ জন
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই